fbpx
আন্তর্জাতিক
Trending

বিল গেট*স – গরিবের করোনা টি*কার ভ*রসা

মাইক্রোস*ফটের প্রতিষ্ঠাতা বিল গেটস কখন কী বল*ছেন, সেদিকে সবার নজর এখন। করোনা*ভাইরাস সংক্রমণ শুরুর পর থেকেই এ নিয়ে তাঁকে নিয়ে না*না রকম কথাবার্তাও রটেছে। তবে সবকিছু উ*ড়িয়ে দিয়ে বিল গেটস তাঁর অর্থসম্পদ খরচ ক*রে চলেছেন করোনার টিকা উদ্ভাবনের পে*ছনে। গরিব দেশগুলো যাতে কম খরচে টি*কা পেতে পারে, সে জন্য নানা প্রচেষ্টা চালি*য়ে যাচ্ছেন গেটস।

প্রযুক্তি*বিষয়ক ওয়েবসাইট রিকো*ডের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বিল গেট*সের কথাবার্তার ওপর যতটা আলো*কপাত করা হচ্ছে, ততটা তাঁর প্রচে*ষ্টার ওপর করা হচ্ছে না। গত শুক্রবার বিল গেটস বলে*ছেন, যদি কার্যকর টিকা পাওয়া যায়, তবে বিশ্বের দরি*দ্র মানুষগুলোকে তা সরব*রাহের জন্য তিনি ও তাঁর দাতব্য সংস্থা ১৫ কোটি ডলা*র দান করবেন।

করোনাভা*ইরাসের প্রতিক্রিয়ায় বিশ্বের দ্বিতী*য় বৃহত্তম ধনী বিল গেটসের অন্যত*ম বৃহৎ প্রতিশ্রুতি এটি। দ্য গেটস ফাউ*ন্ডেশনের পক্ষ থেকে এ অর্থ বৃহত্তম টিকা উৎপাদন*কারী প্রতিষ্ঠান সেরাম ইনস্টিটি*উটকে দেওয়া হচ্ছে। এ অর্থে ১০ কোটি ডো*জ টিকা তৈরি করা হবে। প্রতি ডোজ টিকার দাম ধরা হতে পারে মাত্র ৩ মা*র্কিন ডলার।

গত দুই দশ*কে টিকা তৈরির ক্ষেত্রে শীর্ষ নেতৃত্ব দেওয়া ব্যক্তি*দের মধ্যে এগিয়ে আছেন বিল গেটস। ভ্যাক*সিন তৈরির প্রচেষ্টায় ইতিমধ্যে ৪০০ কোটি ডলা*র খরচ করেছেন তিনি। দীর্ঘদিন ধরে বিল গে*টস উদ্বেগ জানিয়ে বলছেন, ধনী দেশ*গুলো যদি অতিরিক্ত খরচ করে চিকিৎসাব্যবস্থা নি*জেরা হস্তগত করে, তবে গরিব দেশগুলো চিকি*ৎসার অভাবে ধ্বংস হয়ে যাবে।

বিল গেট*স চলতি সপ্তাহে ব্লুমবার্গকে এক সাক্ষাৎকারে বলেছেন, ‘টিকার বিষয়*টি কেবল যাতে ধনী দেশগুলোর হাতে না যায়, তা*র চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।’

গেটস বলে*ছেন, যেসব টিকা উন্নয়*নশীল বিশ্বের জন্য সাশ্রয়ী দা*মে তৈরি করা যাবে, তিনি সেগুলো*কে গুরুত্ব দিচ্ছেন। এর মধ্যে রয়েছে ফার্মাসি*উটিক্যাল কোম্পানি অ্যাস্ট্রাজে*নেকা ও নোভাভ্যাক্সের টিকা। এ টিকা দু*টি কম খরচে সহজে উৎপা*দন করা যায়।

রি*কোড জানিয়েছে, বিল গেটস তাঁ*র ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে অ*র্থ খরচ করে টিকার সর্বনিম্ন দা*মের জন্য চেষ্টা করে যাচ্ছেন। এসব টিকা ভারতের সেরাম ইন*স্টিটিউট তৈরি করবে এবং ৯১টি স্বল্প ও মধ্য আ*য়ের দেশে দেওয়া হবে।

দ্য গে*টস ফাউন্ডেশন করোনাভাই*রাস মহামারি*তে এখন পর্যন্ত মোট ৫০ কোটি মার্কি*ন ডলার দান করেছে। এর মধ্যে গত শুক্র*বার যে ১৫ কোটি ড*লার দেওয়ার প্রতিশ্রুতি এসেছে, তা মূল*ত সুদহীন ঋণ। ৫০ কোটি ডলারের অধি*কাংশই ব্যয় হবে টিকা তৈরির বি*ভিন্ন খুঁটিনাটি কাজে।

করোনা*ভাইরাসের কোন টিকাটি কার্য*কর ও সফল হবে, তার ওপ*র নির্ভর করছে বিল গেসটের সংস্থাটির প*রিকল্পনা। এখন পর্যন্ত ২৮*টি সম্ভাব্য টিকা মানবপরী*ক্ষার পর্যায়ে পৌঁছেছে। একেকটি টিকা এ*কেক রকম ও ভিন্ন উপাদানে তৈরি হচ্ছে। মডার্না ও ফাই*জারের মতো শীর্ষ প্রতিদ্বন্দ্বী কয়েক*টি টিকা বেশি খরুচে।

কারণ, এগু*লো আরএনএ টিকা, যা তৈ*রিতে খরচ বেশি। এনপিআরের এক প্রতি*বেদনে বলা হয়, মডার্নার টিকা*র দাম হতে পারে ৩২ থেকে ৩৭ মার্কিন ডলার আর ফাই*জারের টিকার দাম পড়তে পারে প্রায় ২০ মার্কি*ন ডলার।

বিল গেটস বলেন, টি*কা যে উপায়ে তৈরি হয় এবং তার উন্ন*য়নে যে কঠিন ধাপ পেরোতে হয়, তা*তে এ টিকা কেবল ধনী দেশগু*লোকে সাহায্য করতে পারবে। এই টিকা কম দা*মে সারা বিশ্বের উপযোগী হতে পারবে না।

টিকা তৈরি*তে সফল হলে উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর মু*নাফার কথাও আসে। তবে টিকা উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান*গুলো তাদের কোনো মুনাফা না রাখার প্রতিশ্রুতি দিয়ে বলছে, য*তটা সম্ভব টিকার দাম কম রাখা হবে। কম খরচে টিকা পেতে তাই বিল গেট*সের প্রভাব জরুরি প্রয়ো*জন হয়ে পড়েছে।

তি*নি এ খাতে সাড়া দিয়ে ইতি*মধ্যে বিভিন্ন টিকা উৎপাদন*কারী প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে কাজ শু*রু করেছেন। তিনি অ*ক্সফোর্ড ও নোভা*ভ্যাক্সের টিকার পাশা*পাশি যুক্তরাষ্ট্রের জনসন অ্যান্ড জন*সনের সঙ্গেও কম খরচে টি*কা তৈরির বিষয়ে আ*লোচনা করছেন।

বিল গেট*স শুধু টিকা তৈরিতে অর্থ সাহায্যই কর*ছেন না, তিনি টিকা তৈরিতে বৈ*ষম্য না করার জন্য আওয়া*জও তুলেছেন। তিনি মার্কিন সরকারকে বার্তা দিয়ে* বলেছেন, মার্কিন সর*কারের শুধু তাদের নাগরিক*দের নিয়ে ভাবলেই চলবে না। টিকা*র জাতীয়তা*বাদ বাদ দিয়ে আরও দাতব্য*কাজে এগিয়ে আসতে আইনপ্র*ণেতাদের আহ্বান জানি*য়েছেন তিনি।

Facebook Comments

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button