আইন বিচারপরিবেশ ও জীববৈচিত্রফরিদপুরবাংলাদেশ
Trending

বোয়াল*মারী প্রানী সম্পদ কর্ম*কর্তার বিরুদ্ধে দুর্নীতি ও অনি*য়মের অভি*যোগ

বোয়ালমারী প্রতিনিধি: ফরি*দপুরের বোয়ালমারী উ*পজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডা. নারা*য়ন চন্দ্র সরকারের বিরুদ্ধে ব্যাপক দুর্নী*তি ও অনিয়*মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। জানা গে*ছে, প্রাণী স*ম্পদ অধিদপ্তরের অর্থায়নে ‘আধুনিক প্রযুক্তি*তে গরু হৃষ্টপুষ্টকরণ প্রকল্পে খামা*রীদের প্রশিক্ষণ’ কর্মসূচির বাস্ত*বায়ন করে উপজেলা প্রাণী সম্পদ অধি*দপ্তর।

মোট ১শ জন খামারী ওই প্রক*ল্পের অধীনে প্রশিক্ষ*ণ গ্রহণ করেন। করো*নার আগে ২৫ জন করে ৫০ জন তিন দিনব্যা*পী প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেন। বাকি*দের প্রশিক্ষণ জুনে হওয়ার কথা থাক*লেও করোনার প্রাদু*র্ভাবের কারণে বিলম্বিত হয়। অব*শেষে ২৫ জন করে দুই ব্যাচে ২০ জুলা*ই থেকে উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্ম*কর্তার কার্যা*লয়ে প্রশি*ক্ষণ গ্রহণ করেন।

এই প্রশিক্ষণ কর্মসূচি*তে ব্যাপক দুর্নীতি* ও অনিয়মের সঙ্গে উপজে*লা পশু সম্পদ কর্মক*র্তা ডা. নারায়ন চন্দ্র স*রকারের যোগসা*জশের অভিযোগ উঠেছে। প্রশি*ক্ষণে ১শ জন খামা*রীর অংশগ্রহণ করার কথা থাক*লেও যারা অংশগ্রহণ ক*রেছে তাদের অধি*কাংশেরই খামার নেই। তারা বিভিন্ন ব্যব*সার সঙ্গে জড়িত।

প্রশিক্ষণ কর্মসূ*চিতে এমন কিছু খামা*রীর নাম অন্ত*র্ভুক্ত আছে যারা প্রশিক্ষ*ণের ব্যাপারে কিছুই জা*নেন না। প্রশিক্ষণ তিন দিন*ব্যাপী হওয়ার কথা থাক*লেও শেষ ব্যা*চের প্রশিক্ষণ কর্মসূচি দুই দিন*ব্যাপী হয়ে*ছে। এছাড়া প্রশিক্ষণ ভা*তা বাবদ প্রত্যেক প্রশিক্ষণা*র্থীকে মোট ৭শ ৫০ টাকা দেয়া*র কথা থাকলেও প্রত্যেক প্রশিক্ষ*ণার্থীকে ৫শ টাকা করে দে*য়ার অভিযোগ রয়েছে। প্রশিক্ষ*ণে অংশগ্রহণকারী উপজে*লার চতুল ইউনি*য়নের বাহির*ভাগ গ্রামের মো. আসগা*র বলেন, আমার কোন খা*মার নাই।

আমি পাটের ব্য*বসা করি। আমি প্রাণী সম্পদ কা*র্যালয়ে একটি প্রশি*ক্ষণে অংশ নেই। প্রশি*ক্ষণ থেকে ৫শ টাকা দিয়েছে। পৌর*সভার ৮ নং ওয়ার্ড লো*কনাথ গ্রামের মো. ক*বিরের নাম প্রশিক্ষণার্থী হিসেবে তালি*কাভুক্ত থাকলেও তিনি প্রশি*ক্ষণ গ্রহণ করেননি। কোন প্রশি*ক্ষণ ভাতাও নেননি। অথচ প্রশি*ক্ষণার্থী দেখিয়ে তার প্রশি*ক্ষণ ভাতার টাকা উত্তো*লন করা হয়েছে।

প্রশিক্ষ*ণে অংশগ্রহণ*কারী পৌরস*ভার একই ওয়ার্ডে*র হায়াতুল বলেন, আমার কো*ন খামার নাই, গের*স্থ হিসেবে কিছু গরু আছে। উপ*জেলা প্রাণী সম্পদ কর্ম*কর্তার কার্যা*লয়ে তিন দিনের প্রশিক্ষণের কথা থা*কলেও আমাদের নামে মাত্র দুই দিনের প্র*শিক্ষণ দিয়েছে। তিন দিনের প্রশি*ক্ষণ ভাতা বাবদ ৯শ টাকা দেয়া*র কথা থাকলেও ৫শ টাকা দি*য়েছে।

অনিয়*মের ব্যাপারে বোয়াল*মারী উপজেলা প্রাণী সম্প*দ কর্মকর্তা ডা. না*রায়ন চন্দ্র সরকারের মতা*মত জানতে চাইলে তিনি কথা বল*তে অপারগতা প্রকা*শ করেন। তিনি বলেন, আমা*র ডিডি তার লিখিত অনু*মতি ছাড়া সাংবা*দিকদের সাথে কথা বলতে এবং তথ্য দি*তে নিষেধ করেছেন। এ ব্যাপা*রে উপজেলা নির্বাহী কর্ম*কর্তা ঝোটন চন্দ বলেন, প্র*শিক্ষণের ব্যাপা*রে আমি জানি। তবে অনিয়মে*র বিষয়ে আমা*র জানা নেই।

Facebook Comments

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button