fbpx
আইন বিচারফরিদপুরবাংলাদেশসমগ্র ঢাকা
Trending

৭ দিনের মধ্যে অভি’নেতা এবং ডিরেক্টর খোকাবাবু’কে হত্যার হুমকি

জনপ্রিয় অভিনেতা এবং ডিরেক্টর খোকা’বাবু (হাবিদুর রহমান) কে ৭ দিনের মধ্যে হত্যার হুম’কি সহ মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির হুমকিও দিয়েছে, খোকাবাবুর বাবার একাধিক মামলা’র আসামীরা।

সুত্রে জানা যায়, খোকাবাবু (হাবিদুর রহমান) এর বাবা মুক্তি’যোদ্ধা মো: হাবিবুর রহমান এর একাধিক মামলার আসামী নগরকান্দা থানার জুংগুরদি গ্রামের, মৃত-তারা মাতু: এর পুত্র মিজানুর রহমান এবং একই থানার সলিথা গ্রামের মরহুম আ: হান্নান মিয়ার পুত্র আবুল হাশেম হাসমতগং আসামীরা, গত ২৫/০৮/২০২০ইং তারিখে, উক্ত আসামী মিজানুর রহমান এবং আবুল হাশেম হাসমত, বাদি মো: হাবিবুর রহমানের বাড়িতে গিয়ে, উক্ত হাবিবুর রহমান’কে না পেয়ে, বাড়িতে থাকা তার ছোট ছেলে খোকাবাবু (হাবিদুর রহমানকে) পেয়ে, তাকে হত্যার হুমকি দিয়ে বলে যে, তোর বাবা ফরিদপুর সহ ঢাকাতে আমাদের নামে যে সব মামলা করেছে, ৭দিনের মধ্যে যদি সব মামলা তোর বাবা তুলে না নেয়, তাহলে তোর বাবা সহ তোদের পরিবারের সবাইকে বিভিন্ন মানুষ দিয়ে মিথ্যা মামলা সহ তোর পরিবারকে যেখানে পাবো, সেখানে আমার গ্যাং দিয়ে মেরে ফেলবো।

অপর আসামী আবুল হাশেম হাসমত হুমকি দিয়ে বলে, আমাদের বিরুদ্ধেও সব মামলা তুলে না আনলে, তোর বাবাকে সহ তোর পরিবারের বিরুদ্ধে, একাধিক বিভিন্ন মামলা দিয়ে, বাবার নাম ভুলিয়ে দিব এবং পূর্বে যেমন নিজের শরীলে নিজেই আঘাত করে, তোর বাবা-মা কে ফাঁসিয়েছিলাম, তেমনি নিজেই নিজের শরীলে আঘাত করে তোকে সহ তোর পরিবারের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়ে ফাঁসাবো, ভুলে যাবিনা, আমি পুলিশের সোর্স, পুলিশ আমার কথায় উঠে আর বসে, তো’কে সহ তোর পরিবারকে মাদক দিয়ে ফাঁসাতে আমার বেশি কষ্ট হবে না। মিজান স্যারের কথা মত তোদের ৭দিন সময় দিলাম, যদি ৭দিনের মধ্যে তোর বাবা আমাদের বিরুদ্ধে সব মামলা তুলে না নেয়, তাহলে তোর বাবা সহ তোদের সবাইকে কুপিয়ে মারবো।” এসব কথা বলে উক্ত মিজান এবং হাসমত মোটর সাইকেল করে জুংগুরদী গ্রামের দিকে চলে যায়।

এব্যপারে খোকাবাবু বলেন যে, মিজানুর রহমান এবং আবুল হাশেম হাসমত গংদের সাথে আমার বাবার একাধিক মামলা চলছে, তারই জের ধরে তারা আমাদের বাড়িতে আসে এবং আমার বাবাকে না পেয়ে আমাকে হুমকি দেয়। এব্যপারে আমি নগরকান্দা থানায় ডায়েরী করেছি এবং আদালতে মামলা করার প্রস্তুতি নিচ্ছি।

‘‘খোকাবাবু (হাবিদুর রহমান) আরও বলেন, একজন মামলার আসামী এবং পুলিশের সোর্সকে ভয় পাবার মত ছেলে আমি না, তাদের কথায় থানার পুলিশ উঠতে পারে-বসতে পারি, কিন্তু তারা কেউ আইনের উর্দ্ধে নয়।

এলাকাবাসির সুত্রে জানা যায়, উক্ত হাসমত নিজেকে মানবাধিকার সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে, দেশের বিভিন্ন জায়গাতে ভন্ডামি করে সংসার চালায়। অথচ সে ৫ম শ্রেণীও পাস করেনি।

তিনি আরও বলেন, আমার বাবা সারাজিবন অন্যায়ের প্রতিবাদ করেছেন। গ্রামের মানুষ, সহ আমাদের জাত-গুষ্ঠির মানুষকেও ছাড় দেননি। আমাদের গ্রামের এবং জাত-গুষ্ঠির কিছু কাকারা এবং চাচাতো ভাইয়েরা, গোপনে আমাদের অনেক ক্ষতি করে যাচ্ছে, তারা ভেবেছে গোপনে ক্ষতি করলে আমরা জানতে পারবো না, কিন্তু আমরা সবই জানি এবং খুব তারাতারি তাদের বিরুদ্ধেও মামলা করার প্রস্তুতি নিচ্ছি।

যাইহোক, আপাতত বেশি কিছু বলবো না, খুব তারাতারি মামলা করবো এবং উক্ত মিজানুন রহমান মিজান এবং আবুল হাশেম হাসমতসহ তাদের পরিবারের হাজারো অপকর্মের প্রমান নিয়ে খুব তারাতারি সবার সামনে তুলে ধরবো।”

Facebook Comments

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button