নারী ও শিশু নির্যাতনবাংলাদেশ
Trending

চেয়ার’ম্যানের বিরু’দ্ধে মামলা, ধর্ষণে’র ঘটনা টাকা দিয়ে মী’মাংসা

মাদারী’পুরে ১৪ বছরের এক কিশোরীকে ধর্ষ’ণের ঘটনায় অভিযুক্ত ব্যক্তিকে জুতাপেটা ও দুই লা’খ টাকা জরিমানা করে মীমাং’সা করার অভিযোগে ইউপি চেয়ার’ম্যানসহ আটজনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। গত মঙ্গলবার রাতে সদর মডেল থা’নায় ওই কিশোরীর মা বাদী হয়ে মাম’লাটি করেন।

মাম’লায় ওই ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ার’ম্যান আকতার হাওলাদার, স্থা’নীয় মাতবর মোয়াজ্জে’ম আকন, রকমান আকন, মান্নান আকন, সোহেল মাল, রা’জ্জাক মাল, সজিব আকন ও ওই কিশোরীকে ধর্ষণে’র ঘটনায় অভিযুক্ত মামুন মাল’কে আসামি করা হয়।

মামলার এ’জাহার ও পুলিশের সূত্র জানা যায়, ৯ আ’গস্ট সদর উপজেলার এক কিশো’রীকে (১৪) বাড়ি থেকে ডেকে নির্জন স্থানে নিয়ে যান ভ্যানচালক মা’মুন মাল। পরে জোর করে কিশোরী’কে ধর্ষণ করেন তিনি। এ সময় কি’শোরীর চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এলে পালিয়ে যান মা’মুন। বিষয়টি স্থানীয় মাতব’রদের জানালে ইউপি চেয়ারম্যা’নের মাধ্যমে পরদিন মীমাংসা’য় বসে উভয় পক্ষ।

পরে অভিযুক্ত’কে ১৫ বার জুতাপেটা করেন ইউপি চেয়া’রম্যান আকতার হাওলাদার। এ ছাড়া ধর্ষণের অপ’রাধে মামুনের কাছ থেকে আদায় করা হয় দুই লাখ টা’কা। এর মধ্যে ১ লাখ ২০ হা’জার টাকা নির্যাত’নের শিকার পরিবারকে দিয়ে বাকি টাকা রেখে দেন চেয়ার’ম্যান ও মাতব’রেরা।

পুলিশ সূত্র জা’নায়, জরিমানা ও জুতা’পেটা করে ধর্ষণের ঘটনা মীমাংসা করার পর ইউপি চেয়ার’ম্যান ও স্থানীয় নেতাদের বি’রুদ্ধে মুখ খুলতে ভয় পান ওই কিশো’রীর পরিবার ও প্রতিবেশীরা। একপ’র্যায়ে পুলিশ, উপজেলা প্রশাস’ন ও মহিলা অধিদপ্ত’রের কর্মকর্তারা বিষয়টি জানতে পারেন। পরে গত’কাল রাতে তাঁদের সহায়তায় কিশোরী’র মা বাদী হয়ে ইউপি চেয়ারম্যান আক’তার হাওলাদারসহ আটজ’নের নামে সদর মডেল থানা’য় মামলা করেন।

এ বিষয়ে মাদা’রীপুর সদর মডেল থানার ভার’প্রাপ্ত কর্মকর্তা কামরু’ল ইসলাম মিঞা বলেন, ‘এ ঘটনায় জড়িত ব্যক্তিদের ধরতে পুলিশ কাজ শুরু করেছে। প্রাথমি’কভাবে আমরা জানতে পেরেছি, ওই ইউপি চেয়ার’ম্যানসহ আসামিরা আত্মগোপন করেছেন। ইউপি চেয়া’রম্যান ঢাকায় আছেন বলে আমরা শুনেছি। তবে এ মামলায় চেয়ার’ম্যানসহ বাকি আসামিদের দ্রুত গ্রে’প্তার করে বিচারের আওতায় আনা হবে।’ তিনি আর’ও বলেন, ধর্ষণের শিকার ওই কি’শোরীর শারীরিক পরীক্ষা মাদারী’পুর সদর হাসপাতালে সম্পন্ন হয়েছে। ভুক্তভো’গী এই পরিবারকে পুলিশের পক্ষ থেকে নিরাপত্তাসহ সব ধর’নের আইনগত সহযো’গিতা দেওয়া হবে।

 

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button